চৌদ্দগ্রামে সংবাদ সম্মেলনে মুসল্লিদের অভিযোগ মসজিদ নিয়ে অপরাজনীতি করছে জামায়াত


প্রকাশের সময় : মে ১৬, ২০২৩, ১:০৭ অপরাহ্ন / ৪৪৫
চৌদ্দগ্রামে সংবাদ সম্মেলনে মুসল্লিদের অভিযোগ মসজিদ নিয়ে অপরাজনীতি করছে জামায়াত

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে মসজিদ নিয়ে জামায়াত-শিবির অপরাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। উপজেলার মুন্সিরহাট ইউনিয়নের ছোটখিল জামে মসজিদের মুসল্লিরা এই অভিযোগ তুলে এ ঘটনায় জড়িতদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এতে অভিযোগ করা হয়- অন্য কোথাও দাঁড়াতে না পেরে চৌদ্দগ্রামে এখন ‘মসজিদের ওপর ভর করে’ রাজনীতি করছে জামায়াত-শিবিরের লোকেরা।

বৃহস্পতিবার বিকেলে চৌদ্দগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মুসল্লিদের পক্ষে লিখিত বক্তব্য রাখেন মসজিদ পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি ইউসুফ মজুমদার। এ সময় মসজিদের বেশ কয়েকজন মুসল্লি উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে ইউসুফ মজুমদার বলেন, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ছোটখিল গ্রামে কোন মসজিদ ছিলো না। ২০১২ সালে আমার বাবা ও চাচারা একটি মসজিদ নির্মাণের জন্য ৬ শতক এবং পরবর্তীতে আমি ব্যক্তিগতভাবে আরো দুই শতক মিলিয়ে সর্বমোট ৮ শতক জায়গা ওয়াকফ্ করে দেই। মসজিদ নির্মিত হওয়ার পর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে আমার বাবা তাজুল ইসলাম মজুমদার দায়িত্ব পালন করে আসছেন। প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে এ পদে তিনি আমৃত্যু দায়িত্ব পালন করবেন বলে গ্রামবাসী সিদ্ধান্ত নেয় । আর সেক্রেটারী হিসেবে মুসল্লিদের পক্ষ থেকে সর্বসম্মতিক্রমে যে কোন একজন দায়িত্ব পালন করবেন। সেই হিসেবে ২০২২ সালে সর্বশেষ গঠনকৃত কমিটির সেক্রেটারীর দায়িত্ব পালন করছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো.দুলাল হাজারী। অথচ গত ৯ মে জামায়াত শিবিরেরে নেতাকর্মীরা আমাদের মসজিদ নিয়ে অপপ্রচার চালিয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। তাদের আয়োজিত কথিত সাংবাদিক সম্মেলনে আমার ভাই মাওলানা মোস্তফা মজুমদারকে সেক্রেটারী বলে অপপ্রচার চালানো হয়। কমিটির সভাপতি আমার বাবা অসুস্থ থাকার কারণে সহ-সভাপতি হিসেবে আমি সেক্রেটারীর সাথে সমন্বয় করে মসজিদ পরিচালনা করে আসছি। মসজিদের দায়-দেনা পরিশোধ শেষে কমিটির সহ-সভাপতি মো. ইউসুফ মজুমদার ও সেক্রেটারী দুলাল হাজারির নামে সিটি এজেন্ট ব্যাংক দেড়কোটা শাখায় একটি যৌথ হিসাব খোলা হয়েছে। যার নম্বর: ২২০৩৮৭৫৮০৪০০১। এই ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমেই মসজিদের হিসাব পরিচালিত হয়ে থাকে। অথচ কথিত সংবাদ সম্মেলনে তারা অপপ্রচার করেছেন মসজিদের কোন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নেই। বর্তমানে মসজিদের ফান্ডে
জমা রয়েছে ১লাখ ৯৬ হাজার ২৫০ টাকা। তাঁরা অপপ্রচার চালিয়েছেন আমরা মসজিদের টাকা আত্মসাত করেছি।
ইউসুফ মজুমদার আরো বলেন, মুসল্লিদের সাথে আলোচনা করে বার্ষিক চাঁদা নির্ধারণ করা হয়। অতীতে সোহাগ নামের এক মুসল্লিকে চাঁদা আদায়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়। ২০২৩ সালের বার্ষিক চাঁদা আদায়ের জন্য সৈয়দ আহাম্মদকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। যার হিসাব এখনো আমাদের কাছে আসেনি। তাই আত্মসাৎ করার কোন সুযোগও নেই। আর পরিচালনা কমিটির মেয়াদ ২ থেকে ৩ বছর থাকে। সে অনুযায়ী ২০২২ সালে গঠিত কমিটির মেয়াদ শেষ হবে ২০২৪-২০২৫ সালে। তাই মাঝখানে কমিটি গঠনের কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। অথচ কমিটির সভাপতি হতে ২০ লাখ ও সেক্রেটারী হতে ১০ লাখ টাকা দাবির বিষয়টি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। গ্রামবাসীর ইবাদত করার জন্য আমরা পারিবারিক ভাবে জায়গা ওয়াকফ্ করে দেওয়া ছাড়াও মসজিদ নির্মাণের জন্য সাবেক রেলমন্ত্রী মো.মুজিবুল হক এমপিসহ বিভিন্ন ব্যক্তিদের কাছ থেকে দান-অনুদান সংগ্রহ করি। গত মঙ্গলবার যারা কথিত সংবাদ সম্মেলন করেছে তাদের ব্যক্তিগত কোন অনুদান বা তারা কারও কাছ থেকে একটি টাকাও সংগ্রহ করে দেয়নি। গ্রামবাসী সকলে মিলে মসজিদ নির্মাণসহ আধুনিকরণে দায়িত্ব পালনের জন্য আমাকে অনুরোধ করনে। গ্রামবাসীর অনুরোধে আমি মসজিদের কর্মকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত হই।
তিনি আরো বলেন, আমাদের গ্রামটি মুন্সিরহাট ইউনিয়নের শেষ প্রান্তে হওয়ায় সরকারি অনেক সুযোগ-সুবিধা থেকে অতীতে বঞ্চিত হয়েছে। একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে আমার দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে এবং আমার রাজনৈতিক অভিভাবক মুজিবুল হক এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর আমি ছোটখিল গ্রামের উন্নয়নে বিভিন্ন দান-অনুদান নিয়ে আসি। আমার এ কর্মকাণ্ড সহ্য করতে না পেরে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ জামায়াত-শিবির বিভিন্নভাবে ষড়যন্ত্র করছে। সর্বশেষ আর কোন কিছু না পেয়ে আমাদের মুসলমানদের প্রিয় স্থান মসজিদকে হাতিয়ার বানিয়ে তারা আমার বিরুদ্ধে নতুন করে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।
ইউসুফ মজুমদার বলেন, একজন মুসলমান কখনো আল্লাহর ঘর মসজিদের টাকা আত্মসাৎ করতে পারে না। জামায়াত এখন মসজিদের ওপর ভর করে অপরাজনীতি করতে চায়। এজন্য তারা গত ৯ মে কথিত সংবাদ সম্মেলনে অপপ্রচার চালিয়ে আমার ও আমার পরিবারের মানসম্মান নষ্ট করার চেষ্টা করেছে। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তকারীদের মুখোশ উন্মোচনে সত্য উদ্ঘাটনে সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করছি।

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
.#0
#20
#
20