কৃষকের সন্তান এমপি হলে কেউ ঠকে না – সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি


প্রকাশের সময় : মে ২০, ২০২৩, ৮:০৯ অপরাহ্ন / ১৩০
কৃষকের সন্তান এমপি হলে কেউ ঠকে না – সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি

মোঃ আবদুল জলিল রিপন
কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক রেলমন্ত্রী মোঃ মুজিবুল হক এমপি বলেছেন, আমি আপনাদের মতো কৃষকের সন্তান। অতীতে যারা আমার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন তারা কেউ জমিদারের ছেলে কেউ বড়লোকের ছেলে। তারা এমপি মন্ত্রী হলেও চৌদ্দগ্রামের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়নি। একমাত্র কৃষকের সন্তান আপনাদের মুজিবুল হক অবহেলিত এ চৌদ্দগ্রাম কে আলোকিত করেছে। কৃষকের সন্তান এমপি হলে কেউ ঠকে না, অন্যরা হলে চৌদ্দগ্রামের মানুষ ঠকে এটা প্রমাণিত হয়েছে। তাই আগামীতেও ঠকবেন, না জিতবেন সিদ্ধান্ত আপনাদেরকেই নিতে হবে।
তিনি শনিবার বিকেলে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের কালিকাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
স্থানীয় ধর্মপুর নাজিম আলী স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সালাউদ্দিন মজুমদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় বক্তব্য রাখেন চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার মেয়র জিএম মীর হোসেন মিরু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পার্থ সারথি দত্ত, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রহমত উল্যাহ বাবুল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এবিএম এ বাহার, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আবু তাহের, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জিএম জাহিদ হোসেন টিপু,  যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দ আহমেদ খোকন, ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুব হোসেন মজুমদার, মোশারেফ হোসেন, মাহফুজ আলম, নাঈমুর রহমান মজুমদার মাসুম, কাজী ফখরুল ইসলাম ফরহাদ, জাফর ইকবাল, একে খোকন, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল হাসেম,  উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আকতার হোসেন পাটোয়ারী, ইসহাক খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন ভূঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল হাসান মুরাদ, কামরুল আলম মোল্লা, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন সর্দার, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন পাটোয়ারী, যুবলীগ নেতা ইমাম হোসেন পাটোয়ারী, পৌর যুবলীগের সভাপতি কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম পাটোয়ারী, সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ খাঁ শামীম, উপজেলা শ্রমিক লীগের আরস মজুমদার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন রুবেল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তৌফিকুল ইসলাম সবুজ, যুবলীগ নেতা মাসুম বিল্লাহ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন সর্দার, সেলিম আহমেদ সামস্, মহসিন আলম খান, জসিম উদ্দিন, জাফর আলম, হারুন অর রশিদ, শাহরিয়ার মজুমদার জুয়েল, আবদুর রশিদ, মাজহারুল ইসলাম বাবুল, মো: বাবুল, শওকত আকবর, মোশারফ হোসেন লিটন, এড. কবির হোসেন ও সোহাগ  প্রমুখ।
সাবেক রেলমন্ত্রী আরও বলেন,আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসায় এবং আমি আপনাদের প্রতিনিধি হওয়ার পরেই চৌদ্দগ্রামের উন্নয়ন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ১৯৯৬-২০০১ সাল এবং ২০০৯ থেকে অদ্যাবধি পর্যন্ত আমার হাত দিয়েই চৌদ্দগ্রামের ৪২৯ গ্রামের সকল পাড়া মহল্লার রাস্তা নির্মাণ, মসজিদ, মক্তব, মাদ্রাসা, মন্দির, স্কুল কলেজে নতুন নতুন ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। এই উন্নয়নের মাধ্যমেই একসময়ের অবহেলিত চৌদ্দগ্রাম আজ আলোকিত চৌদ্দগ্রামে পরিণত হয়েছে। এখনো অনেক উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। আশাকরি আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ওইসব উন্নয়ন কাজ শেষ হবে। এরপরও যদি কোন কাজ বাকি থাকে তাহলে আমার এই সময়ের মধ্যে যতটুকু সম্ভব করে দিব ইনশাআল্লাহ।

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
.#0
#20
#
20