নব্য বেঈমানদের চৌদ্দগ্রামের মানুষ সারাজীবন তাদের ঘৃণা করবে-সাবেক রেলমন্ত্রী 


প্রকাশের সময় : মে ১৫, ২০২৩, ১০:২৩ অপরাহ্ন / ৩৩৩
নব্য বেঈমানদের চৌদ্দগ্রামের মানুষ সারাজীবন তাদের ঘৃণা করবে-সাবেক রেলমন্ত্রী 
মোঃ আবদুল জলিল রিপন
কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক রেলমন্ত্রী মো: মুজিবুল হক এমপি বলেন, যারা ষড়যন্ত্র করছে তারা বেয়াদব, তাদের শরীরের রক্তে রক্তে আমার অবদান রয়েছে। আমি তাদের প্রতিষ্ঠিত করেছি, মেয়র – চেয়ারম্যান বানিয়েছি। এখন তারা আমার সাথে বেঈমানী বিশ্বাস ঘাতকতা করছে।
সিরাজউদৌল্লার সাথে মীর জাফর, বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে খন্দকার মোস্তাক যেমন বেঈমানী করেছে তেমনি এ চৌদ্দগ্রামেও নব্য বেঈমানের সৃষ্টি হয়েছে। আমি তাদের নাম মুখে আনতে চাইনা। মীর জাফর মোস্তাকদের যেমন মানুষ ঘৃণা  করে।চৌদ্দগ্রামের মানুষ সারাজীবন তাদের ঘৃণা করবে।
তিনি গত বুধবার বিকেলে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাশিনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
স্থানীয় রানীর বাজার হাইস্কুল মাঠে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রশিদ মেম্বারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুস সোবহান ভুঁইয়া হাসান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রহমত উল্যাহ বাবুল, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এবিএম এ বাহার, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আবু তাহের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আকতার হোসেন পাটোয়ারী, বিশিষ্ট আইনজীবী ড. আবদুল মান্নান ভূঁইয়া, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল হাসেম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জিএম জাহিদ হোসেন টিপু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, কামরুল হাসান মুরাদ, কামরুল আলম মোল্লা, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য এমরানুল হক কামাল, ইউপি চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, মাহবুব হোসেন মজুমদার, মাহফুজ আলম, সোহাগ মিয়া, একে খোকন, যুবলীগ নেতা নজির আহমেদ মজুমদার, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন সর্দার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন রুবেল।

সাবেক রেলমন্ত্রী আরও বলেন,

বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারাদেশের ন্যায় চৌদ্দগ্রামেও ব্যাপক উন্নয়ন কার্যক্রম হয়েছে এবং চলমান রয়েছে।  উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষে থেকে শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে ভূমিকা রাখা জন্য তিনি আহবান করেন।
তিনি আরও বলেন, আপনাদের মতো আমিও অজপাড়া গাঁয়ের সন্তান। আমার বাবা ছিলেন একজন কৃষক। এই এলাকাসহ সারা চৌদ্দগ্রাম অবহেলিত ছিল। অনেকে প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ সদস্য হয়েছিলেন কিন্তু চৌদ্দগ্রামের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয় নাই। ১৯৯৬ সালে আমি এমপি হওয়ার পরেই চৌদ্দগ্রামের মানুষ উন্নয়ন সম্পর্কে জানতে পারেন।
মুজিবুল হক আরও বলেন, আমি এমপি হওয়ার আগে এই এলাকায় কোন পাকা রাস্তা ছিলনা। এখন কোন রাস্তা কাঁচা নেই। সকল রাস্তা ঘাট আমি পাকা করেছি। প্রাইমারি স্কুল হাই স্কুলের নতুন নতুন ভবন করেছি।
বর্তমানে তেমন কাজ বাকি নেই। যেটুকু রয়েছে তাও শেষ হবে ইনশাল্লাহ। আপনারা আমার সাথে আছেন, থাকবেন আমিও আপনাদের সাথে থাকবো ইনশাআল্লাহ।
এর আগে ০১ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে নবনির্মিত ভবন শুভ উদ্বোধন করেন সাবেক রেলমন্ত্রী মোঃ মুজিবুল হক এমপি।
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
.#0
#20
#
20