চৌদ্দগ্রামে গৃহবধূ কে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ


প্রকাশের সময় : জুলাই ৫, ২০২৩, ৬:০৯ পূর্বাহ্ন / ২৭০
চৌদ্দগ্রামে গৃহবধূ কে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে তাসলিমা আক্তার (৩২) নামে এক গৃহবধুকে মাথায় আঘাত করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও ভাগিনার  বিরুদ্ধে।  তাসলিমা আক্তার মঙ্গলবার সকালে  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  মৃত্যুবরণ করেন । এই তথ্যটি নিশ্চিত করেছে চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি শুভ রঞ্জন চাকমা।
এই ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মুন্সিরহাট ইউনিয়নের লনিশ্বর গ্রামে। নিহত গৃহবধু তাসলিমা আক্তার তিন সন্তানের জননী। তিনি ওই গ্রামের আমান উল্লাহর স্ত্রী।
নিহতের বাবা তনু মিয়া জানান, পনের বছর আগে উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের শুভপুর গ্রামের তনু মিয়ার মেয়ে তাসলিমার পাশ্ববর্তী মুন্সীরহাট ইউনিয়নের লনিশ্বর গ্রামের বদি আলমের ছেলে আমান উল্লাহর সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের সংসার সুখে শান্তিতে চললে প্রথম সন্তান জন্মের পর থেকেই অশান্তি নেমে আসে। বিভিন্ন চলছাতুরি ধরে তাসলিমাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে স্বামী আমান উল্যাহ। গত সোমবার দুপুরে পছন্দের তরকারি রান্না কে কেন্দ্র করে আমান উল্লাহ তাসলিমাকে বেদম মারদর ও গালিগালাজ করতে থাকে। একপর্যায়ে আমান উল্লার ভাগিনা মোঃ নাসির (২৫) মামার পক্ষ নিয়ে রান্না ঘরে থাকা সিমেন্টের ভাঙ্গা চুলার অংশ দিয়ে তাসলিমার মাথায় আঘাত করে। এসময় তাসলিমার আত্মচিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসে। পরে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় খিরনশাল বাজারে পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে চিকিৎসাসেবা প্রদান করে বাড়িতে নিয়ে আসে। মঙ্গলবার সকালে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে স্বামী আমান উল্লাহ তার ভাতিজা লিমন কে দিয়ে তাসলিমা কে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায়। এসময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত ডাঃ তাসলিমাকে মৃত ঘোষনা করেন। স্ত্রীর মৃত্যুর কথা শুনে কৌশলে স্বামী আমান উল্লাহ ও ভাগিনা নাসির পালিয়ে যায়।
ভাতিজা লিমন বলেন, তরকারি রান্নাকে কেন্দ্র করে সোমবার দুপুরে স্বামী- স্ত্রীর মধ্যে হাতাতির ঘটনা ঘটে। এসময় মামার পক্ষ নিয়ে ভাগিনা নাসির রান্না ঘরে থাকা সিমেন্টের ভাঙ্গা চুলার অংশ দিয়ে মাথায় আঘাত করলে গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়। তাসলিমার আত্মচিৎকারে আমরা এগিয়ে আসলে নাসির পালিয়ে যায়। পরে তাকে পল্লী চিকিৎসকের মাধ্যমে সেবা প্রদান করা হয়। আজ সকালে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে আমরা হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাঃ তাসলিমাকে মৃত ঘোষনা করেন।
কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার  ডাঃ শাহাদাৎ হোসেন বলেন, তাসলিমার মাথায় রক্তাক্ত গভীর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।
চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে গৃহবধু তাসলিমার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হবে।
এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে নিহতের বাবা তনু মিয়া জানান।

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
.#0
#20
#
20