মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর সংবাদ প্রশাসনকে না জানিয়েই দাফন


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২৩, ২০২৩, ২:৩৪ অপরাহ্ন / ৪৪১
মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর সংবাদ প্রশাসনকে না জানিয়েই দাফন

খবর পেয়ে ছুটে গেলেন ইউএনও

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে মো: জুনাব আলী নামের এক মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু সংবাদ স্থানীয় প্রশাসনকে না জানিয়েই রাতে দাফন করা হয়েছে। সাংবাদিকদের কাছে মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে ওই বাড়িতে ছুটে গেলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর হোসেন। তিনি ওই মুক্তিযোদ্ধার কবর জিয়ারত ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। পরে দাফনের জন্য বরাদ্দকৃত একটি চেক মুক্তিযোদ্ধার ছেলে শাহআলম বাবুর হাতে তুলে দেন।
জানাগেছে, চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার উত্তর ফালগুন করা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা জুনাব আলী শনিবার বিকেলে ইন্তেকাল করেন। কোন বীর মুক্তিযোদ্ধা মারা গেলে দাফনের আগে গার্ড অফ অর্নারসহ রাস্ট্রীয় নিয়ম পালনের জন্য উপজেলা ও থানা প্রশাসনকে অবহিত করার বিধান রয়েছে। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধা জুনাব আলীর মৃত্যু সংবাদটি পরিবার বা মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে উপজেলা ও থানা প্রশাসন কে অবহিত করা হয়নি। পরে গার্ড অফ অনার ছাড়াই শনিবার রাত নয়টায় মুক্তিযোদ্ধা জুনাব আলীর দাফন সম্পন্ন করা হয়। সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর হোসেন কে অবহিত করলে তিনি খুবই মর্মাহত হন। তাৎক্ষণিক তিনি ওই মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে ছুটে গিয়ে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। পরে মুক্তিযোদ্ধাদের দাফনের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থের একটি চেক তার ছেলের হাতে তুলে দেন তিনি।
নিহত মুক্তিযোদ্ধার ছেলে শাহ আলম বাবু জানান, বাবার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত হয়ে পড়ি। তাই পরিবারের পক্ষ থেকে বাবার মৃত্যু সংবাদটি প্রশাসন কে অবহিত করতে পারিনি। পরে সাংবাদিকদের কাছে বাবার মৃত্যু সংবাদ শুনে ইউএনও স্যার আমাদের বাড়িতে আসেন। তিনি আমাদের খোঁজ খবর নেন এবং উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শোক জানান। পরে দাফনের জন্য বরাদ্দকৃত একটি সরকারি অনুদানের চেক প্রদান করেন।
এ বিষয়ে সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল হাসেম বলেন, দাফনের ৩০ মিনিট আগে জুনাব আলীর মৃত্যু সংবাদটি আমাদের আরেকজন মুক্তিযোদ্ধা আলী নেওয়াজ ভাই আমাকে অবহিত করেন। আমার প্রশ্নের জানাজার নামাজ রাত নয়টায় অনুষ্ঠিত হবে বলে আলী নেওয়াজ ভাই জানান। সূর্যাস্তের পরে গার্ড অব অর্নার দেওয়া সরকারি ভাবে কোন বিধান না থাকায় বিষয়টি আর প্রশাসন কে অবহিত করা হয়নি। তবে মৃত্যুর পর পরই বিষয়টি আমাকে জানালে আমি প্রশাসন কে অবহিত করতে পারতাম।
চৌদ্দগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ ত্রিনাথ সাহা জানান, মুক্তিযোদ্ধাদের মুত্যৃর পর গার্ড অফ অর্নার দিতে পুলিশ সকল সময় প্রস্তুত। তবে বীরমুক্তিযোদ্ধা জুনাব আলীর মৃত্যুর সংবাদটি আমাকে কেউ অবহিত করেননি যেটা খুবই দুঃখজনক।
চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তানভীর হোসেন বলেন, বীরমুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান, জাতির সূর্য সন্তান। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গার্ড অফ অনার দেওয়া আমদের ইউএনও দের জন্য গর্বের একটি দায়িত্ব, যেটা আমরা নিষ্ঠার সাথে করে থাকি। বীর মুক্তিযোদ্ধা জুনাব আলীর মৃত্যুর খবর কেউই আমাকে জানায়নি। এটা দুঃখজনক, খবরটা শুনে আমি খুবই মর্মাহত হয়েছি। তবে খবর পেলে আমি রাতেই ছুটে যেতাম। কোন বীর মুক্তিযোদ্ধা মারা গেলে উপজেলা ও থানা প্রশাসন কে তাৎক্ষণিক অবহিত করার জন্য জনপ্রতিনিধি ও বীরমুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
.#0
#20
#
20